এক দরজায় ৩৯ প্রতিষ্ঠানের ২০৮ সেবা

আমদানি-রফতানি সহজ করতে একই প্ল্যাটফর্ম থেকে ৩৯ সরকারি প্রতিষ্ঠানকে ২০৮টি সেবা প্রদান করবে। এ লক্ষে সরকার ন্যাশনাল সিঙ্গেল উইনডো নামে একটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। ২০২২ সালের ডিসেম্বর থেকে এই সেবা পাওয়া যাবে।
রোববার হবিগঞ্জের হোটেল প্যালেসে আয়োজিত ‘বাংলাদেশ ন্যাশনাল সিঙ্গেল উনডো (এনএসডব্লিউ) এর লক্ষ্য ও কর্মপরিকল্পনা’ বিষয়ক তিন দিনব্যাপী এক কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূইয়া এসব কথা বলেন।
ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এনবিআর চেয়ারম্যান বক্তব্য রাখেন।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে এনবিআর সদস্য খন্দকার আমিনুর রহমান ও মাসুদ সাদিক, বিশ্বব্যাংক গ্রুপের আইএফসির বেসরকারি খাত বিশেষজ্ঞ নুসরাত নাহিদ বাবি বক্তব্য রাখেন। কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন সিলেটের কাস্টমস্ এক্সাইজ অ্যান্ড ভ্যাট কমিশনার গোলাম মো. মনির।
এনবিআর চেয়ারম্যান তার বক্তব্যে বলেন, দেশে বিনিয়োগের গতি বাড়াতে নতুন এ প্রকল্পে ‘বাংলাদেশ ন্যাশনাল সিঙ্গেল উনডো (এনএসডব্লিউ)’ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। এনবিআর এ প্রকল্পের নেতৃত্ব দিচ্ছে। এতে একজন বিনিয়োগকারী আমদানি রফতানি সংক্রান্ত সকল সেবা অতি দ্রুত পাবে। সেবাগ্রহীতাকে আর সরকারি অফিসে অফিসে ঘুরতে হবে না। নতুন এ উদ্যোগ বাস্তবায়ন হলে মিথ্যা ঘোষণায় আমদানি রফতানির সুযোগ কমে যাবে বলে তিনি জানান।
অনুষ্ঠানে খন্দকার মো. আমিনুর রহমান বলেন, বর্তমানে চট্টগ্রাম বন্দরে ক্ষেত্রবিশেষে আমদানি কাজে আটদিন এবং রফতানি কাজে পাঁচদিন ব্যয় হয়। নতুন এ প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে এসব কার্যক্রম আট ঘন্টায় সম্পন্ন করা সম্ভব হবে। এরই মধ্যে প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ বিভিন্ন ধাপে শুরু হয়েছে বলে তিনি জানান।
অনুষ্ঠান জানানো হয়, বিশ্বব্যাংকের ৭৪ দশমিক ১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ব্যয়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে। এটি বাস্তবায়ন হলে হলে আমদানি-রফতানি সংক্রান্ত কাজে আমদানি-রফতানিকারকরা বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উদ্ভিদ সংঘনিরোধ বিভাগ, প্রধান আমদানি রফতানি নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়, মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর,মৎস্য অধিদপ্তর,পশু সম্পদ অধিদপ্তর,বাংলাদেশ স্থল বন্দর কর্তৃপক্ষ, বিআইডব্লিউটিএ, বিডা, বাংলাদেশ ব্যাংকসহ ৩৯ প্রতিষ্ঠানের সেবা একই প্লাটফর্মে পাওয়া যাবে।এ প্রকল্পের সকল কার্যক্রম অনলাইনে পরিচালিত হবে।