কঠোর লকডাউন ঈদের পর- জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক : সারাদেশ পবিত্র ঈদুল আজহার পর ২৩ জুলাই থেকে ৫ আগস্ট মধ্যরাত পর্যন্ত কঠোর লকডাউনের আওতায় থাকবে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। শনিবার (১৭ জুলাই) দুপুরে চুয়াডাঙ্গা ৬ বিজিবি’র ৯৬তম রিক্রুট ব্যাচের প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, কোরবানিতে আমাদের বিশাল এক অর্থনীতি রয়েছে। এ বিষয়টি মাথায় রেখেই সরকার মানুষের চলাফেরার উপর বিধিনিষেধ শিথিল করেছে। তবে করোনা সংক্রমণ থেকে বাঁচতে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। যতদিন পর্যন্ত সবাইকে টিকার আওতায় আনা সম্ভব না হবে ততদিন পর্যন্ত আমাদের মাস্ক ব্যবহার করতে হবে।

ফরহাদ হোসেন বলেন, মেহেরপুর, চুয়াডাঙ্গা এবং কুষ্টিয়া অর্থনৈতিক অঞ্চল হলেও এতদিন পিছিয়ে ছিল। কিন্তু মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ জেলাগুলোর প্রতি দৃষ্টি দেওয়ায় আজকে প্রত্যেকটি জেলা অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চল হয়ে উঠেছে। আগামী ২৩ জুলাই থেকে ৫ আগস্ট ১৪ দিনের কঠোর লকডাউনে প্রয়োজন ছাড়া জনসাধারণের চলাচল নিষিদ্ধ।

এরআগে, এ লকডাউনে গার্মেন্টস সহ সকল ধরনের শিল্প-কারখানা বন্ধ রাখার নির্দেশনা দিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ নির্দেশনার কথা জানান।

এদিকে ঈদের পরে শুরু হওয়া লকডাউনে শিল্প-কারখানা খোলা রাখার আহ্বান জানিয়েছিল দেশের ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই। করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় ১ জুলাই থেকে সাত দিনের জন্য দেশব্যাপী কঠোর লকডাউন জারি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এরপরই লকডাউনের মেয়াদ বৃদ্ধি করে ১৪ জুলাই মধ্য রাত পর্যন্ত ঘোষণা করা হয়।

লকডাউন শিথিল করার সাথেই ২৩ জুলাই থেকে ৫ আগস্ট ১৪ দিনের জন্য কঠোর লকডাউন ঘোষণা করে প্রজ্ঞাপন জারি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এ লকডাউনে গণপরিবহন, দোকানপাট, শপিংমল, সরকারি-বেসরকারি অফিস বন্ধ রাখার পাশাপাশি গার্মেন্টসসহ সব ধরনের শিল্প-কারখানা বন্ধ রাখার ঘোষণা দেওয়া হয়।