ফিট থাকতে কর্মজীবী নারীর জন্য টীপস

 

 

সৈয়দা সুলতানা নিপা : কর্মব্যস্ত নারীরা যেমনি সামলাচ্ছে ঘর আবার তেমনি ভাবে সামলাচ্ছেন অফিসও। নারীরা এখন যুগের সাথে সমান তালে ঘরে বাইরে কাজ করে যাচ্ছে। তবে এদিকে ঘাটতি থেকে যাচ্ছে নিজেকে নিয়ে। বিশেষ করে ঘর আর অফিসের কাজ সামলে নিজের প্রতি যত্ন নেয়ার যেন আর সময় হয় না। ফলে ত্বক হয়ে পড়ে নির্জীব। আর তাড়াতাড়ি বুড়িয়ে যান কিংবা ব্রণ সমস্যায় ভোগেন। তাই কর্মজীবী নারীদের ফিট থাকার কিছু টীপস থাকছে আজকের আয়োজনে।

 

নিয়মিত অভ্যাস করুন হাটার : চেয়ারে বসে থেকে দিনের অধিকাংশ সময় কাটে কর্মব্যস্ত নারীদের। যার ফলে স্বাভাবিক রক্ত চলাচল হয় ব্যাহত। তাই প্রতিদিন অফিসে যাওয়ার সময় কিংবা ফেরার সময়ে জ্যামে বসে না থেকে কিছুক্ষণ হাটার অভ্যাস করুন। এতে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পাবে, অতিরিক্ত মেদ কমবে এবং ত্বক ভালো থাকবে। তবে রোদ থাকলে হাটার সময় ছাতা এবং সানগ্লাস ব্যবহার করতে হবে।

 

পানি পান করুন পর্যাপ্ত : অফিসে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দেখা যায় নারীরা খুব কম পানি পান করেন। তবে অফিসের সময়টাতে প্রচুর পানি পান করা উচিত। আমাদের শরীরের ৭০% পানি। তাই পানির অভাব হলে সেটা ত্বকের উপরে প্রভাব ফেলে খুব সহজে। পানি শরীর থেকে দূষিত পদার্থ বের করতে সহায়তা করে। কম পানি পানের কারণে ব্রণের সমস্যা কিংবা ত্বক শুষ্কতার সমস্যা দেখা দেয়।

 

স্টাইলিশ হেয়ার কাট : হেয়ার স্টাইল হলো নিজেকে ফিট রাখার আরেকটি ভালো উপায়। যা আপনাকে অনেকটা প্রেজেন্টেবল করে তোলে। এর সাথে বেছে নিতে হবে হেয়ারকাট, যার যত্ন নিতে আপনার সময় বাঁচবে। একই সঙ্গে স্টাইলও হবে। আপনি ছোট ও স্টাইলিশ হেয়ারকাট দিতে পারেন।

 

ব্যবহার করুন ড্রাই শ্যাম্পু : কিছু প্রসাধনী রাখতে হবে নারীকে ফিট থাকতে। অনেক সময় ব্যস্ততার কারণে নিয়মিত চুল ধোয়া সম্ভব হয়ে ওঠে না আমাদের। কিন্তু প্রতিনিয়ত আপনাকে যেতেই হচ্ছে বাইরে। এমন পরিস্থিতিতে সবচেয়ে ভালো অপশন হলো ড্রাই শ্যাম্পু ব্যবহার করা। কারণ এটি আপনাকে খুব সহজে ফিট থাকতে সাহায্য করবে।

 

ব্যবহার করুন ব্রাইট লিপস্টিক : লিপস্টিকের ব্রাইট শেড খুব সহজেই বদলে দেবে আপনার লুককে। এর সাথে বাড়বে আপনার আত্মবিশ্বাসও। যখন কোনও অফিশিয়াল মিটিংয়ে যাবেন অথবা পার্টিতে যাবেন, ব্রাইট লিপস্টিক দিন।

 

অতিরিক্ত মেকআপ ব্যবহার না করেও আমরা নিজেকে পরিপাটি রাখতে পারি। সেক্ষেত্রে জোর দিতে হবে হালক বেজ মেকআপের দিকে। সাথে চাইলে হালকা কালারে ব্লাশন ও ব্যবহার করা যায়। আমরা অনেকেই বুঝি না কি ধরনের মেকআপ লুক হওয়া উচিত আমাদের কর্মক্ষেত্রে। অবশ্যই আমাদের অতিরিক্ত মেকআপ এড়িয়ে চলা যুক্তিযুক্ত।